আইনি জটিলতায় শিল্পা শেঠি

নতুন করে আইনি জটিলতায় ফাঁসলেন শিল্পা শেঠি, তাঁর বোন ও মা। জটিলতা আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছে। জানা গেছে এক অটো মোবাইল সংস্থার কাছ থেকে নেওয়া শিল্পার বাবার সুরেন্দ্র শেঠির নেওয়া পুরনো ২১ লক্ষ টাকা ঋণের কারণেই এই সমস্যায় পড়েছেন শিল্পা শেঠির পরিবার।

২০১৫ সালে ‘পরহাদ অমরা’ নামে একটি সংস্থার থেকে ২১ লক্ষ টাকা ঋণ নিয়েছিলেন শিল্পার বাবা সুরেন্দ্র শেঠি। যে টাকার চেক সুরেন্দ্র শেঠির কোম্পানির নামে দেওয়া হয়েছিল। এই ঋণের জন্য ১৮ শতাংশ হারে সুদ দেওয়ার কথা ছিল। ঋণ শোধ করার আগে ২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে মৃত্যু হয় শিল্পা শেঠির বাবা সুরেন্দ্র শেঠির।

‘পরহাদ অমরা’র দাবি সুরেন্দ্র শেঠির মৃত্যুর পর শিল্পার মা সুনন্দা শেঠি, শিল্পা শেঠি কিংবা তাঁর বোন সমিতা শেঠি, কেউই এই ঋণ শোধের চেষ্ঠা করেননি। অথচ শিল্পার বাবা সুরেন্দ্র শেঠির কোম্পানির মালিকানা তাঁদের নামেও রয়েছে। ২০১৭ সালে ২৪ এপ্রিল প্রথম শিল্পার পরিবারকে আইনি চিঠি পাঠানো হয়। মুম্বাইয়ের মেট্রোপলিটন মেজিস্ট্রেটের আদালতে ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৫৬ ধারায় মামলা করা হয়। ২৬ অক্টোবর ২০১৭ সালে প্রথম মামলা দায়ের করা হয়।

‘পরহাদ অমরা’ নামে ওই সংস্থার বক্তব্য গত বছর ৮ ডিসেম্বর মামলার প্রথম শুনানি ছিল। তবে শিল্পা শেঠির পরিবারের তরফে কেউই কোর্ট উপস্থিত থাকেননি। পরে আদালতের নির্দেশে ফের ভারতীয় দণ্ডবিধির ২০২ ধারায় মামলা করা হয়। এই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ২৯ জানুয়ারি ধার্য করা হয়েছে।

জি নিউজ