ঈদের পয়সা উসুল ছবি ‘বেপরোয়া’

ঈদে ৫৩টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে রাজা চন্দ পরিচালিত ‘বেপর‌োয়া’। এ ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছেন রোশান ও ববি। এছাড়া আরো অভিনয় করেছেন তারিক আনাম খান, নিমা রহমান, খালেদ হোসেন সুজন, শহিদুল আলম সাচ্চু, নানা শাহ, কাজী হায়াৎ, চিকন আলী প্রমুখ। ছবিটি প্রযোজনা করেছে জাজ মাল্টিমিডিয়া।

এ ছবিটিতে বাণিজ্যিক ছবির সকল উপাদান বিদ্যমান। অ্যাকশান, রোমান্স, কমেডির মিশেলে নির্মিত ‘বেপরোয়া’ পয়সা উসুল করার মতো ছবি। ছবিতে দেখা যায় বোনের ক্যারিয়ার গড়ার জন্য ভাই নিজের ইচ্ছে বিসর্জন দেয়। বাবার কাছে সবসময় অকর্মন্য হয়ে থাকা ছেলে একসময় নকল পুলিশ সেজে দেশের প্রভাবশালী এক ব্যক্তির মুখোশ খুলে দেয়। নকল পুলিশ সেজে থাকা রোশান’র চরিত্রের মূল পেশা সিনেমায় ডামি শট দেয়া। সহজ কথায় একজন স্টান্টম্যান। তার প্রেমে পড়ে বড় পুলিশকর্তার মেয়ে ববি। তাদের প্রেমের পাশাপাশি ঘটে রকমারি ঘটনা। এগিয়ে চলে পুলিশের অপরাধী ধরার চেষ্টা।

‘বেপরোয়া’ ছবিতে অ্যাকশান দৃশ্যে রোশান

ছবিটিতে অ্যাকশান দৃশ্যে রোশান  বেশ ভালো করেছেন। রোশানের অভিনয়ের চেয়েও বড় প্রাপ্তি তার নায়কোচিত লুক। সুঠাম দেহের অধিকারী রোশান সময়ের সাথে আরো পরিপক্ক হয়ে উঠবেন। অন্যদিকে পুরো ছবিতেই গ্ল্যামারাস ছিলেন ববি। তার অভিনয়ও ভালো ছিল। ছবির নাচ – গান ছিল উপভোগ্য। তারিক আনাম খান, নিমা রহমান, শহীদুল আলম সাচ্চু সাবলিল অভিনয় করে গেছেন। চিকন আলী কমেডি চরিত্রে ভালো করেছেন। খালেদ হোসেন সুজনের খল চরিত্রটি ছিল নজরকাড়া। বাংলা সিনেমায় এরকম একটি চরিত্রে তার মতো অভিনেতাই পারফেক্ট। দর্শককে হাসিয়েছেন সাচ্চু তার সহজাত অভিনয় প্রতিভার গুণে।

‘বেপর‌োয়া’ ছবিতে গ্ল্যামারাস ছিলেন ববি

ছবির কাহিনী, চরিত্রদের উচ্চারণে কিছু অসংগতি দেখা গেলেও তা মূল কাহিনীতে খুব একটা প্রভাব ফেলেনি। তবে সংশ্লিষ্টদের উচিৎ ছিল প্রতিটি চরিত্রের উচ্চারণে নজর দেয়া। কোন কোন অভিনয় শিল্পীকে জড়সড় অভিনয় করতে দেখা গেছে। ছবির মূল আকর্ষণ ছিল অ্যাকশান দৃশ্য এবং গান। নির্মাতা পরিচ্ছন্ন ছবি বানিয়েছেন, পরিবার নিয়ে দেখার মতো ছবি ‘বেপরোয়া’। ঈদে দর্শক ‘বেপরোয়া’র মতো ছবিই পছন্দ করে এমন মত দিয়েছেন সিনে সংশ্লিষ্টরা।