এক নজরে ৩৯তম বাচসাস চলচ্চিত্র পুরস্কার

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সংস্থা’র সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসবে অনুষ্ঠিত হলো ৩৯তম বাচসাস চলচ্চিত্র পুরস্কার। এবার ২০১৪ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত বিভিন্ন শাখায় পুরস্কার প্রদান করা হয়। এ উপলক্ষে গত ৫ এপ্রিল রাজধানীর আগারগাঁওয়ের বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভ ভবনের প্রধান মিলনায়তনে আয়োজন করা হয় বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের।

বাচসাসের সুবর্ণ জয়ন্তীর এ আসরে আজীবন সম্মাননা প্রদান করা হয় বরেণ্য চিত্রনায়ক আলমগীরকে। চলচ্চিত্র-সংশ্নিষ্ট বিশিষ্ট পাঁচ ব্যক্তিকে দেওয়া হয় বিশেষ ইমেরিটাস অ্যাওয়ার্ড। তারা হলেন- কোহিনুর আখতার সুচন্দা (অভিনয়), সৈয়দ হাসান ইমাম (অভিনয়), সাবিনা ইয়াসমিন (সঙ্গীত), মীর্জা আবদুল খালেক (প্রদর্শক) ও ফরিদুর রেজা সাগর (প্রযোজক)। তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন তথ্যমন্ত্রী ড: হাসান মাহমুদ। ২০১৪ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত মুক্তি পাওয়া সিনেমা থেকে চলচ্চিত্রের বিভিন্ন শাখার শিল্পীদের বাচসাস চলচ্চিত্র পুরস্কার দেওয়া হয়।

বাচসাস পুরস্কার ২০১৪ : শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র : দেশা : দ্য লিডার, শ্রেষ্ঠ পরিচালক : সৈকত নাসির (দেশা : দ্য লিডার), শ্রেষ্ঠ অভিনেতা : ফেরদৌস (এক কাপ চা), শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী : মাহিয়া মাহি (দেশা : দ্য লিডার), শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক : আহম্মেদ হুমায়ুন (স্বপ্ন ছোঁয়া), শ্রেষ্ঠ গায়ক : বেলাল খান (অল্প অল্প প্রেমের গল্প), শ্রেষ্ঠ গায়িকা : লেমিস (অগ্নি), শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র গ্রাহক : চন্দন রায় চৌধুরী (দেশা : দ্য লিডার), শ্রেষ্ঠ অভিনেতা (পার্শ্ব চরিত্রে) : তারিক আনাম খান (দেশা : দ্য লিডার)।

বাচসাস পুরস্কার ২০১৫ : শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র : পদ্ম পাতার জল, শ্রেষ্ঠ পরিচালক : মোরশেদুল ইসলাম (অনিল বাগচীর একদিন), শ্রেষ্ঠ অভিনেতা : আরিফিন শুভ (ছুঁয়ে দিলে মন), শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী : বিদ্যা সিনহা সাহা মিম (পদ্ম পাতার জল), শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক : শওকত আলী ইমন (ব্লু্যাক মানি), শ্রেষ্ঠ গায়ক : আসিফ আকবর (পদ্ম পাতার জল), শ্রেষ্ঠ গায়িকা : এলিটা করিম (পদ্ম পাতার জল), শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র গ্রাহক : মাহফুজুর রহমান খান (পদ্ম পাতার জল), শ্রেষ্ঠ অভিনেতা (পার্শ্ব চরিত্রে) : সাদেক বাচ্চু (লাভ ম্যারেজ), শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী (পার্শ্ব চরিত্রে) : জ্যোতিকা জ্যোতি (অনিল বাগচীর একদিন)।

বাচসাস পুরস্কার ২০১৬ : শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র : অজ্ঞাতনামা, শ্রেষ্ঠ পরিচালক : তৌকীর আহমেদ (অজ্ঞাতনামা), শ্রেষ্ঠ অভিনেতা : চঞ্চল চৌধুরী (আয়নাবাজি), শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী : নাবিলা (আয়নাবাজি), শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক : পিন্টু ঘোষ (অজ্ঞাতনামা), শ্রেষ্ঠ গায়ক : ফজলুর রহমান বাবু (অজ্ঞাতনামা), শ্রেষ্ঠ গায়িকা : সিঁথি সাহা (ভোলাত যায় না তারে), শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র গ্রাহক : রাশেদ জামান চৌধুরী (আয়নাবাজি), শ্রেষ্ঠ অভিনেতা (পার্শ্ব চরিত্রে) : ফজলুর রহমান বাবু (অজ্ঞাতনামা), শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী (পার্শ্ব চরিত্রে) : মৌসুমী হামিদ (পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেমকাহিনী-২)। জুরি বোর্ডের বিশেষ পুরস্কার : কুমার বিশ্বজিৎ, সঙ্গীতশিল্পী ও সঙ্গীত পরিচালক (সারাংশে তুমি)।

বাচসাস পুরস্কার ২০১৭ : শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র : রাজনীতি ও ঢাকা অ্যাটাক, শ্রেষ্ঠ পরিচালক : হাসিবুর রেজা কল্লোল (সত্তা), শ্রেষ্ঠ অভিনেতা : শাকিব খান (সত্তা), শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী : তিশা (হালদা), শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী : অপু বিশ্বাস (রাজনীতি), শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক : বাপ্পা মজুমদার (সত্তা), শ্রেষ্ঠ গায়ক : জেমস (সত্তা), শ্রেষ্ঠ গায়িকা : মমতাজ (সত্তা), শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্রগ্রাহক : আসাদুজ্জামান মজনু (রাজনীতি), শ্রেষ্ঠ অভিনেতা (পার্শ্ব চরিত্রে) : আনিসুর রহমান মিলন (রাজনীতি), শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী (পার্শ্ব চরিত্রে ) : রুনা খান (হালদা), শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী (পার্শ্ব চরিত্রে) : নাসরিন ( সত্তা)।

বাচসাস পুরস্কার ২০১৮ : শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র : দেবী, শ্রেষ্ঠ পরিচালক : অনম বিশ্বাস (দেবী), শ্রেষ্ঠ অভিনেতা : সিয়াম (দহন), শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী : জয়া আহসান (দেবী), শ্রেষ্ঠ গায়ক : ইমরান (নায়ক), শ্রেষ্ঠ গায়িকা : আঁখি আলমগীর (একটি সিনেমার গল্প), শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র গ্রাহক : সাইফুল শাহীন (পোড়ামন-২), শ্রেষ্ঠ অভিনেতা (পার্শ্ব চরিত্রে) : মিশা সওদাগর (জান্নাত), শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী (পার্শ্ব চরিত্রে ) : শবনম ফারিয়া (দেবী), জুরি বোর্ডের বিশেষ পুরস্কার : পূজা চেরী (নবাগত নায়িকা)।

প্রসঙ্গত, ১৯৬৮ সালের ৫ এপ্রিল তৎকালীন চলচ্চিত্র সাংবাদিকদের এক সভায় গঠিত হয় ‘পাকিস্তান চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি’। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর সেটির নাম দাঁড়ায় ‘বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি’, সংক্ষেপে ‘বাচসাস’। মুক্তিযুদ্ধের আগে জন্ম হলেও মূলত ১৯৭৪ সাল থেকে পুরস্কার প্রদান শুরু করে সংগঠনটি। তবে নানা কারণে গত ৫ বছর বাচসাস পুরস্কার প্রদান করা হয়নি।

ছবি: আ. জ. সাদিক মাজেদ