ওখানে কাজ করার অভিজ্ঞতা ভীষণ অন্যরকম : সুষমা

জনপ্রিয় অভিনেত্রী সুষমা সরকার ছোট ও বড়পর্দায় কাজ করছেন সমানতালে। নিয়মিত কাজ করছেন চলচ্চিত্রে, পাশাপাশি বিভিন্ন নাটকেও তাঁকে দেখা যাচ্ছে। তাঁর সাম্প্রতিক ব্যস্ততা নিয়ে কথা হলো পেইজ থ্রি’র সাথে। আলাপচারিতায় জানালেন তাঁর বিভিন্ন কাজের কথা।

স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র . . . 

সম্প্রতি শুটিং শেষ করলাম তৌফিক এলাহির স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের (ওমেন অফ নো রিলিজিওন)। দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে শুটিং করেছি আমরা। ওখানে কাজ করার অভিজ্ঞতা ভীষণ অন্যরকম। ওখানে না গেলে আসলে ওদের লাইফস্টাইল বোঝা সম্ভব হতো না। আমি আগেও এমন চরিত্রে কাজ করেছি, কিন্তু ওখানে গিয়ে চরিত্রটি ধারণ করা অনেক সহজ হয়েছে।

এ স্বল্পদৈর্ঘ্যে আমার সাথে আছেন মুশফিক ফারহান। আর বাকিরা সব ওখানকার।

১০-১৫ মিনিটের একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য এটি। গল্পটি খুবই সুন্দর। মাসখানেকের মধ্যে ছবিটির মিউজিক, ডাবিং, এডিটিং শেষ করে মুক্তি দেয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ছবিটি বিভিন্ন চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হওয়ার উদ্দেশ্যে নির্মিত হয়েছে।

অন্যান্য চলচ্চিত্র . . .

‘জ্যাম’ ছবির শুটিং কিছু বাকি আছে। ‘সাপলুডু’ ছবির শুটিং শেষ, কলকাতায় এডিটিং চলছে। অনুদানের ছবি, গাজী রাকায়াতের ‘গোর’ – এর শুটিং, ডাবিং সব শেষ। এ বছরেই সম্ভবত মুক্তি পাবে।

এছাড়া আরো দুটি ছবির কাজ শেষ করেছি, এর একটি নূরুল আলম আতিকের ‘পেয়ারার সুবাস’ এবং অন্যটি বুলবুল জিলানীর ‘রৌদ্রছায়া’।

বিশেষ নাটক . . . 

একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে দুটো নাটকের কাজ করলাম। একটি হলো দূরন্ত টিভির এক ঘন্টার নাটক ‘ঝুটন পাখির কথা’। এবারই প্রথম ওরা একঘন্টার নাটক বানাচ্ছে। অন্যটি বিটিভির নাটক, মামুনুর রশীদের লেখা ‘পাগলা ঘন্টা’। এছাড়াও ধারাবাহিকের ব্যস্ততা তো আছেই।