ওয়েব সিরিজের নামে চলছে অশ্লীলতা!

ইদানিং টেলিভিশন নাটকের চেয়েও ওয়েব সিরিজ দর্শকপ্রিয় হচ্ছে। ইউটিউব, নেটফ্লিক্সের মতো বাংলাদেশেও গড়ে উঠেছে ওয়েব ভিত্তিক বিনোদনের মাধ্যম। বিশেষ করে সেন্সর নামক শব্দটি ওয়েবে না থাকায় এ দিকে ঝুঁকছে কতিপয় নির্মাতা। ইচ্ছেমতো মানহীন, অশালিন সংলাপ দিয়ে বানিয়ে ফেলছে ওয়েব ফিল্ম কিংবা সিরিজ।

কিছুদিন আগে কাজল আরেফিন অমি নির্মাণ করলেন দুটো ওয়েব ভিত্তিক ফিকশন ‘এক্স গার্লফ্রেন্ড’ এবং ‘এক্স বয়ফ্রেন্ড’। ইউটিউবে সিনেমাওয়ালার চ্যানেলে দুটো ফিকশন প্রকাশ করা হয়। কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেন আফরান নিশো এবং তানজিন তিশা। প্রথম প্রকাশ পায় ‘এক্স গার্লফ্রেন্ড’। সেখানে দেখানো হয় প্রেমিকা তিশা ছেড়ে যাওয়ায় প্রেমিক নিশো ‘প্লেবয়’ হয়ে পড়ে। কিছু কিছু সংলাপের ছিল ‘ডাবল মিনিং’। একটি সংলাপ ছিল, আমি মুখ খুলবো, চেইন খুলবো, সব খুলে ফেলবো পার্টিতে।

দ্বিতীয় কিস্তির নাম ‘এক্স বয়ফ্রেন্ড’। সেখানে তিশার সাথে যুক্ত হোন তাসনিয়া ফারিন। দেখা যায় প্রথম কিস্তির বিপরীত কাহিনী। এ যাত্রায় এক্স বয়ফ্রেন্ড নাচিয়ে মারেন এক্স গার্লফ্রেন্ডকে। শেষদিকের একটি দৃশ্যে তানজিন তিশাকে জড়িয়ে ধরে আফরান নিশো কামুক কণ্ঠে বলতে শুরু করেন, গরম গরম; তিশা জানতে চায়, কি গরম? এরপর তিশাকে জড়িয়ে ধরে দেয়ালের আড়ালে চলে যান নিশো।

শুধু এটাই নয়, এমন আরো অনেক ফিকশন বা সিরিজে দেখানো হয়েছে অশ্লীলতা।

এমন সংলাপ, দৃশ্য দিয়ে নির্মাতা কিসের ইঙ্গিত দিতে চাইছেন? আমাদের সমাজে এসব কী খুবই প্রচলিত? তরুণ সমাজ তবে তো এসবই অভ্যস্থ হতে চাইবে। বিশেষ করে যখন এ ধরনের সস্তা সুড়সুড়ি সংলাপ নাটকের ছোট ছোট ক্লিপ যখন ভাইরাল হয় তখন দর্শকমনে নানা প্রশ্ন দেখা দেয়। ওয়েব সিরিজের লাগামহীন ঘোড়ার লাগাম টেনে ধরার এখনই সময়! এমনটাই বলছেন নাটকপাড়ার সংশ্লিষ্টরা ।