চকবাজারের দুর্ঘটনায় শোবিজে শোক

গত ২০ ফেব্রুয়ারি রাতে পুরনো ঢাকার চকবাজার এলাকায় ঘটে যায় মর্মান্তিক অগ্নিকাণ্ড। অসংখ্য মানুষের মৃত্যুর খবরে শোকে মুহ্যমান দেশ। শোকের ছায়া নেমেছে শোবিজ অঙ্গনেও। তারকারা তাঁদের ফেসবুকের মাধ্যমে শোক প্রকাশ করেছেন।

শাকিব খান

ঢাকার চকবাজারে গতকাল রাতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় যারা মারা গেছেন তাদের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ করছি। নিহতদের আত্মার শান্তি কামনার পাশাপাশি পরিবার ও পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা রইলো। সেই সাথে আহতদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করছি।

অনন্ত জলিল

বন্ধুগণ, আসসালামুআলাইকুম। আজ আমার মতো আপনারাও হয়তো শোকাহত। ভাষা শহীদদের হারানোর দিনে দুটি শোকে আজ আমি অশ্রুসিক্ত।গতকাল রাতে চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের অসংখ্য প্রাণ আমাদের কাছ থেকে বিদায় নিয়েছে। পুরান ঢাকার চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে যারা মারা গিয়েছে তাদের জন্য মনের অন্তঃস্থল থেকে শোক প্রকাশ করছি এবং আল্লাহর নিকট প্রার্থনা করছি, আল্লাহ্ যেন সকলকে জান্নাতুল ফেরদাউস দান করেন।

একই কারণে এর পূর্বে নিমতলীতেও অসংখ্য প্রাণ দিতে হয়েছিল, আজও সেই একই কারণে আমরা তারচেয়ে ভয়াবহ পরিস্থিতির সম্মুখীন হলাম। আবাসিক এলাকায় বিপদজনক কেমিক্যালের গোডাউন আমাদের অংসখ্য প্রাণ কেড়ে নিচ্ছে। তবু আমরা এতটুকুও সতর্ক হচ্ছি না। তাই আমি সাধারণ জনগণ ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার কাছে বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি, তিনি যেন ঢাকাবাসীদের নিরাপত্তার জন্য এ সমস্ত বিপদজনক পদার্থ বস্তুর গোডাউন ও দোকান নিরাপদ স্থানে স্থানান্তর করার সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অতি দ্রুত নির্দেশ প্রদান করেন। পুরান ঢাকার আর একটি নিষ্পাপ প্রাণ যেন কোনো দুর্ঘটনায় মারা না যায়, এই কামনা করছি। খোদা হাফেজ।

জয়া আহসান 

আমরা শোকাহত

রিয়াজ

ভাষা দিবসে ভাষাহীন আমি…। গভীর সমবেদনা!

অপু বিশ্বাস

চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে নিহত সকলের আত্মার শান্তি ও আহতদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করছি। স্বজনদের প্রতি জানাই গভীর সমবেদনা।

শানারেই দেবী শানু

এমন লাশের মিছিল তো চাই নি। জীবন পোড়া গন্ধে ভারী হয়ে আছে একুশ। নিঃশ্বাস বন্ধ হয়ে আসছে পোড়া শোকের গন্ধে হয়ত জীবন আবার চলবে নতুন কোন ছন্দে!আহারে জীবন!

জায়েদ খান

চকবাজার ট্র্যাজেডি! এ এক অন্য ঢাকা! শোকের নগরী…! কত লাশ…! পোড়া লাশ…! স্বজন হারানোর আর্তনাদ! কী আছে সান্ত্বনার?

আরিফিন শুভ

আমরা স্তব্ধ, আমরা শোকাহত…।

নিরব 

ভাষার দিনে ভাষা হারিয়ে ভাষাহীন আমি।

কেয়া

চকবাজার অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ হয়ে মারা গেছে অনেক নিরীহ প্রাণ। বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি ও শোকে ডোবা পরিবারের জন্য রইলো সমবেদনা।

সাইমন সাদিক

আমরা যদি একটু সচেতন হতাম তাহলে হয়তো শোকের মিছিল এত বড় হতো না। যার যায় একমাত্র সে জানে স্বজন হারানোর যন্ত্রণা কত বেদনার। ভাষার দিনে ভাষা খোঁজে পাচ্ছি না। আল্লাহ তাদের পরিবারকে এই ভয়াবহ শোক সহ্য করার শক্তি দান করুন।

উর্মিলা শ্রাবন্তী কর

এ মুহূর্তে যারা ঢাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার বা এর আশেপাশে অবস্থান করছেন তারা দয়া করে ঢাকা মেডিকেলে চলে যান। চকবাজার অগ্নিকাণ্ডে আহতদের জন্য প্রচুর রক্ত লাগছে। চলুন রক্ত দিয়ে অর্জিত এই ভাষা দিবসে রক্ত দিয়ে জীবন বাঁচাই। সবার কাছে অনুরোধ করছি।

আবু শাহেদ ইমন

প্রাইভেট কার বা সিএনজি-তে মেয়াদোত্তীর্ণ সিলিন্ডার ব্যবহার করে হাজার হাজার জীবন্ত বোমা নিয়ে আমরা ঘোরাফেরা করছি দিব্বি। নিচতলায় ক্যামিকেলের গোডাউন ভাড়া দিয়ে সংসার পরিজন নিয়ে আরামে ঘুমাচ্ছি দিনের পর দিন। প্রতিটি এলাকায় রাস্তার মোড়ে মোড়ে কোন রকম নিরাপত্তা ছাড়াই জীবন্ত বোমার সিলিন্ডারে রান্না হচ্ছে বছরের পর বছর। জনগণ নিজের ব্যক্তি স্বার্থে এই সব ক্ষুদ্র জাগতিক লাভের আশা ছাড়বেনা। কিন্তু সরকারের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিভাগগুলোর অনতিবিলম্বে সকল ধরনের গ্যাস সিলিন্ডার আর আবাসিক ভবন থাকা ক্যামিকেলের গোডাউনের অবস্থান সনাক্ত করে এর নিরাপত্তা বিধানে শক্ত পলিসি তৈরি করতে হবে। নতুবা নিমতলি বা চকবাজার এই রকম আরও শত মৃত্যুর জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে।

পিন্টু ঘোষ

এতগুলো তাজা প্রাণ পুড়ে নিঃশেষ। শোকের ভাষা হারিয়ে গেছে। তাদের আত্মার শান্তি কামনা করছি।