জর্জিয়ায় আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের দক্ষিণ এশিয়ার কো-অর্ডিনেটরের দায়িত্বে মনজুরুল ইসলাম মেঘ

ইউরোপের দেশ জর্জিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য ইন্টারন্যাশনাল চিলড্রেন এন্ড ইয়ুথ ফিল্ম ফেস্টিভাল ২০১৯ ( গোল্ডেন বাটারফ্লাই) এর দক্ষিন এশিয়া অঞ্চলের কো-অর্ডিনেটর হিসাবে অফিসিয়াল অনুমোদন পেয়েছেন বাংলাদেশী চলচ্চিত্র নির্মাতা ও আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের পরিবেশক মনজুরুল ইসলাম মেঘ।

কৃঞ্চ সাগর ও কাস্পিয়ান সাগরের তীরে অবস্থিত জর্জিয়ার রাজধানী তিবিলিসি তে আগামি ২৯ মে থেকে ১ জুন ২০১৯ অনুষ্ঠিত হবে ইন্টারন্যাশনাল চিলড্রেন এন্ড ইয়ুথ ফিল্ম ফেস্টিভাল ( গোল্ডেন বাটারফ্লাই)।  উৎসবে প্রতিযোগিতা করবে ১৯ বছরের কম বয়সী বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নির্মাতাদের চলচ্চিত্র। ডকুমেন্টারী, ফিকশন, এ্যানিমেশন এই তিন কাটাগরির সর্বোচ্চ ৭ মিনিট দৈর্ঘ্যের সিনেমা ফি ছাড়া জমা দেয়া যাবে আগামি ১০ মে পর্যন্ত।

এই চলচ্চিত্র উৎসবের দক্ষিন এশিয়ার সমন্নয়কের দায়িত্ব পালন করবেন মনজুরুল ইসলাম মেঘ। তিনি বলেন, দক্ষিন এশিয়ার তরুন চলচ্চিত্র নিমার্তাদের কে ইউরোপের চলচ্চিত্র ও উৎসবের সাথে পরিচয় করে দেয়ায় মূলত আমার দায়িত্ব, আমি চলচ্চিত্র নির্মাতা ও প্রযোজকদের বিশ্ব ব্যাপী কনসালেটেন্সি দিয়ে থাকি। আমার প্রতিষ্ঠান সিনেম্যাকিং বিভিন্ন দেশে চলচ্চিত্র পরিবেশক হিসাবে কাজ করছে। আমার পূর্ব অভিজ্ঞতা ও দক্ষিন এশিয়ার চলচ্চিত্র পরিবশেনায় আমার অবস্থান বিবেচনা করে উৎসব কর্তৃপক্ষ আমাকে বেশ কিছু দিন আগে দক্ষিন এশিয়ার কো-অর্ডিনেটর হওয়ার আমন্ত্রণ জানান, আমি সম্মতি দেয়ার পরে তারা অফিসিয়াল পত্রের মাধ্যমে আমাকে দক্ষিন এশিয়া সমন্বয়ক হিসাবে অনুমোদন করেন।

তিনি আরো বলেন, ইন্টারন্যাশনাল চিলড্রেন এন্ড ইয়ুথ ফিল্ম ফেস্টিভালে ( গোল্ডেন বাটারফ্লাই) চলচ্চিত্র নির্মাতারা সরাসরি চলচ্চিত্র জমা দিতে পারবেন। আবার কেউ জমা দিতে ব্যর্থ হলে আমার প্রতিষ্ঠান সিনেম্যাকিং এর সহযোগিতাও নিতে পারবেন। এই উৎসবে আমার দায়িত্ব দক্ষিন এশিয়ার তরুন চলচ্চিত্র নিমার্তাদের সার্বিক সহযোগিতা করা, যাতে ভালো ভালো চলচ্চিত্রগুলো ইউরোপের দর্শকরা দেখার সুযোগ পান।

মেঘ আরো বলেন, এই উৎসবের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক হিসাবে আছেন জর্জিয়ার স্টেট ইউনিভার্সি, ডিপার্টমেন্ট অফ আটর্স। সুতরাং বাংলাদেশী কোন তরুন চলচ্চিত্র নির্মাতার সিনেমা এখানে প্রদর্শিত হলে দেশের জন্য গৌরবের হবে। তারই ধারাবাহিকতায় আমি আরো চেষ্টা করছি দক্ষিন এশিয়ার তরুন চলচ্চিত্র নির্মাতাদের ইউরোপে প্রমোট করতে।

উল্লেখ্য, ইন্টারন্যাশনাল চিলড্রেন এন্ড ইয়ুথ ফিল্ম ফেস্টিভাল ( গোল্ডেন বাটারফ্লাই) এ সেরা চলচ্চিত্র, সেরা পরিচালক, সেরা অভিনেতা- অভিনেত্রী, সেরা ডকুমেন্টারী, সম্পাদনা, শব্দ, চিত্রনাট্য, চিত্রগ্রাহক, শিশু অধিকার বিষয়ক সেরা চলচ্চিত্র ও সেরা চলচ্চিত্র অফ দ্য ইয়ার ( গ্রান্ড পিক্স) মোট ১১ ট বিভাগে পুরস্কার প্রদান করা হবে। উৎসবে আগ্রহী চলচ্চিত্র নির্মাতাদের www.megh.info তে যোগাযোগ করতে অনুরোধ জানানো হয়েছে। এই উৎসবে চলচ্চিত্র প্রেরণ করতে বাংলাদেশী নির্মাতার কোন খরচ বহন করতে হবে না।