দ্রুত উইকেট হারিয়ে চাপে অস্ট্রেলিয়া

দ্রুত উইকেট হারিয়ে চাপে অস্ট্রেলিয়া

মেলবোর্নে বক্সিং ডে’র টেস্টে সফরকারী ভারতের দেয়া ৩৯৯ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে চাপে পড়েছে অস্ট্রেলিয়া। শনিবার (২৯ ডিসেম্বর) টেস্টের চতুর্থ দিনের শেষে অজিদের সংগ্রহ আট উইকেটে ২৫৮ রান। এখনও ১৪০ রানে পিছিয়ে তারা।

সিরিজে ২-১ এগিয়ে যাওয়ার হাতছানি ছিল শনিবারই। কিন্তু নবম উইকেটে ৪৩ রান যোগ করে ভারতের অপেক্ষা দীর্ঘায়িত করালেন কামিন্স। এই টেস্টে নয় উইকেট নিয়েছেন তিনি। ব্যাট হাতেও এদিন পূর্ণ করলেন পঞ্চাশ। যা তার টেস্ট কেরিয়ারের দ্বিতীয় অর্ধশতরান। পঞ্চম দিনে বৃষ্টির আশঙ্কা রয়েছে বলেই কামিন্স এর লড়াই তাৎপর্যপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

এদিন সকালে দ্বিতীয় ইনিংসে পাঁচ উইকেটে ৫৫ নিয়ে শুরু করেছিল ভারত। আট উইকেটে ১০৬ উঠার পর ডিক্লেয়ার করে দেন কোহালি। মায়াঙ্ক আগরওয়াল (৪২) ও ঋষভ পান্ত (৩৩) ছাড়া কোনও ব্যাটসম্যান দুই অঙ্কের রানে পৌঁছাতে পারেননি। অস্ট্রেলিয়ার সফলতম বোলার প্যাট কামিন্স। তিনি ২৭ রানে নেন ছয় উইকেট। জশ হ্যাজেলড দুই উইকেট নেন ২২ রানে।

ভারতের লিড দাঁড়ায় ৩৯৮ রানের। অর্থাৎ জয়ের জন্য চতুর্থ ইনিংসে অস্ট্রেলিয়াকে করতে হবে ৩৯৯ রান। যা প্রায় অসম্ভব লক্ষ্য। আর অস্ট্রেলিয়া প্রথম থেকে নিয়মিত ব্যবধানে হারাতেও থাকে উইকেট। যশপ্রীত বুমরা ফেরান অ্যারন ফিঞ্চকে (৩)। দ্বিতীয় স্লিপে তার ক্যাচ নেন কোহালি। আর এক ওপেনার মার্কাস হ্যারিস (১৩) ফেরেন রবীন্দ্র জাদেজার বলে ফরোয়ার্ড শর্ট লেগে মায়াঙ্ককে ক্যাচ দিয়ে। অস্ট্রেলিয়ার তৃতীয় উইকেট পড়ে ৬৩ রানে। মোহাম্মদ শামির বলে এলবিডব্লিউ হন উসমান খাওয়াজা (৩৩)। চতুর্থ উইকেটে শন মার্শ ও ট্র্যাভিস হেড ৫১ রান যোগ করে প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিলেন। কিন্তু তা বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। শনকে (৪৪) এলবিডব্লিউ করেন ফের বুমরা। তার ভাই, মিচেল মার্শ (১০) ফেরেন কিছুক্ষণের মধ্যেই। জাদেজার বলে তার ক্যাচ ধরেন কোহালি। চায়ের বিরতিতে ১৩৮ রানে পাঁচ উইকেট হারিয়ে রীতিমতো চাপে দেখাচ্ছিল অস্ট্রেলিয়াকে।

চায়ের বিরতির পর ট্র্যাভিস হেডকে ফেরান ইশান্ত শর্মা। বাইরের বল মারতে গিয়ে স্টাম্পে টেনে আনেন তিনি। ৩৪ করে ফেরেন তিনি। ১৫৭ রানে ছয় উইকেট পড়ল অস্ট্রেলিয়ার। সপ্তম উইকেট পড়ল দলীয় ১৭৬ রানে। জাদেজার বলে কাট করতে গিয়ে উইকেটরক্ষক ঋষভ পান্তকে ক্যাচ দিলেন অজি অধিনায়ক টিম পেন। তিনি করলেন ২৬ রান। অস্ট্রেলিয়ার অষ্টম উইকেট পড়ল ২১৫ রানে। মোহাম্মদ শামির বলে বোল্ড হলেন মিচেল স্টার্ক। তিনি ফিরলেন ১৮ রানে।

এরপর ১৪.১ ওভার টিকে থাকলেন কামিন্স-লায়ন। বাড়তি আধঘণ্টা বল করলেও আসেনি উইকেট। দ্বিতীয় নতুন বলে কয়েক ওভার হাত ঘুরিয়েও বুমরারা পাননি সাফল্য। যা কিছুটা হলেও চিন্তায় রাখছে। তাছাড়া বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে রোববার। এটাও উদ্বেগের।

মতামত দিন