বিমানবন্দরে মেঘলার তিক্ত অভিজ্ঞতা!

ফেব্রুয়ারির শুরুতে তেলেগু ছবি ‘সাকালাকালা ভাল্লাভুডু’ দিয়ে দক্ষিণ ভারতের সিনে ইন্ডাস্ট্রিতে অভিষিক্ত হয়েছেন বাংলাদেশের মেয়ে মেঘলা মুক্তা। সিনেমাটি তাঁকে সাফল্য এনে দিলেও দেশে ফেরার সময়ে এক তিক্ত অভিজ্ঞতার সম্মুখিন হয়েছেন তিনি। ভারতের হায়দরাবাদ বিমানবন্দরে এয়ার ইন্ডিয়ার এক নারী কর্মী তাঁকে হয়রানি করেছেন। হয়রানির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছেন মেঘলা।

মেঘলা তাঁর সোশাল মিডিয়ার একাউন্টে পুরো ঘটনা জানিয়ে একটি পোস্ট দেন গত শুক্রবার ।

সেখানে তিনি জানান, গত বৃহস্পতিবার আমি এয়ার ইন্ডিয়ার AI780 নম্বর ফ্লাইটে হায়দরাবাদ থেকে বাংলাদেশে ফিরছিলাম। বিমানে আমার ২৮ কেজি ওজন বহন করার অনুমতি ছিল কিন্তু আমার কাছে থাকা মালামালের ওজন হয়েছিল ২৯ কেজি। আমি অতিরিক্ত ওজনের জন্য নিয়ম অনুযায়ী অর্থ পরিশোধ করতে রাজি ছিলাম। কিন্তু এয়ার ইন্ডিয়ার হায়দরাবাদের গ্রাউন্ড স্টাফ সুপারভাইজার কানিজ ফাতেমা আমাকে ক্রেডিট কার্ডে অর্থ পরিশোধের জন্য বলেন।

আমি ক্যাশ পেমেন্ট করতে চাইলে তিনি আমাকে ‘ক্রেডিট কার্ড না থাকলে বাসে ভ্রমণ করতে’বলেন। এমনকি ডলার এক্সচেঞ্জ করে পেমেন্ট করতে চাইলেও তিনি রাজি হননি। ফ্লাইটে থাকা আমার বন্ধুরা তার ব্যাগ ভাগাভাগি করতে চাইলে কানিজ ফাতেমা আমাকে বলেন, ‘আপনি এখানে কোনও ব্যবসা বা চুক্তি করতে পারেন না।’

মেঘলা এ বিষয়ে নিজের ভূমিকা নিয়ে পেইজ থ্রি’কে বলেন, আমরা ফ্লাই করার পাশাপাশি তাদের কাছে ভাল আচরণসহ অন্যান্য সেবাও প্রত্যাশা করি। সাধারন কারো সাথে এমন হলে হয়তো তিনি মন খারাপ করতেন বা বড়জোর অভিযোগ করতেন। আমি এমন কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে স্ট্যান্ড নিচ্ছি যাতে ভবিষ্যতে তারা যেন কারো সাথে এমন আচরণ না করতে পারে।

মেঘলা জানালেন তিনি এ বিষয়টি জানিয়ে এয়ার ইন্ডিয়া কর্তৃপক্ষকে অফিসিয়াল ই-মেইল করলেও তাঁরা কোন উত্তর দেয়নি। বরং তারা ইনস্টাগ্রাম একাউন্টে দু:খ প্রকাশ করে বলেছে ঐ কর্মীর বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। মেঘলা প্রত্যাশা করছেন অন্তত সে নারী কর্মী তাঁর কাছে ক্ষমা চাইবেন।

মেঘলা জানালেন তিনি ব্যাপারটির সুষ্ঠু সমাধান হওয়া পর্যন্ত দেখবেন।

প্রসঙ্গত, গত ১ ফেব্রুয়ারি মেঘলা অভিনীত ‘সাকালাকালা ভাল্লাভুডু’ ছবিটি দক্ষিণ ভারতের প্রায় দেড়শো প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায়। ছবিটি মফস্বল অঞ্চলে বেশ ভালো ব্যবসা করছে। ছবির প্রচারণায় মেঘলার ভূমিকা ছিল প্রশংসনীয়।

ছবি: অরণ্য জিয়া