ভারতকে হারিয়ে সিরিজ সমতায় অস্ট্রেলিয়া

ভারতকে হারিয়ে সিরিজ সমতায় অস্ট্রেলিয়া

পার্থে টেস্টের শেষ দিনে অজি পেসার মিচেল স্টার্কের বলের গতিতে বেসামাল ভারতীয় লোয়ার অর্ডার ব্যাটিং। সঙ্গে স্পিনার নাথান লিয়ন আর প্যাট কামিন্স। ভারতকে ১৪৬ রানে হারিয়ে চার টেস্টের সিরিজে সমতা ফেরাল অজিরা।

৫ উইকেটে ১১২ রান নিয়ে জয়ের আশায় দিন শুরু করেছিল ভারত। দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান হানুমা বিহারী ও রিশাভ পান্তের সামর্থ্যও ছিল ইতিহাস গড়ার। কিন্তু তাদের সে কাজ করতে দেননি মিচেল স্টার্ক।

দিনের শুরুতেই গতির সাথে সুইংয়ের মিশেলে দুই ব্যাটসম্যানের নাভিশ্বাস তুলে রাখা স্টার্ক প্রথম আঘাত হানেন বিহারীকে ফিরিয়ে। মিডউইকেটে মার্কাস হ্যারিসের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ৭৫ বল থেকে ২৮ রান করেন বিহারী।

বিহারীর বিদায়ে উইকেটে চলে আসে ভারতের লম্বা ব্যাটিং লেজ। উমেশ যাদভকে সঙ্গে আরও ৬ ওভার কাটিয়ে দেন পান্ত। দিনের ১৩তম ওভারে অস্ট্রেলিয়ার জয়ের পথে শেষ কাটা পান্তকে ফিরিয়ে দেন লিয়ন। বিহারীর মতোই মিডউইকেটে ধরা পড়েন পান্ত, ৬১ বল থেকে করেন ৩০ রান।

এরপর বাকি ছিল কেবল স্বাগতিকদের জয়ের আনুষ্ঠানিকতা। পানি পানের বিরতির পরের ওভারেই ভারতের শেষ দুই উইকেট তুলে নিয়ে সে কাজটিও করে দেন ডানহাতি পেসার প্যাট কামিনস। ১৪০ রানেই থেমে যায় ভারতের ইনিংস। ১৪৬ রানে জয় পায় অস্ট্রেলিয়া।

স্বাগতিকদের পক্ষে বল হাতে ৩টি করে উইকেট নেন নাথান লিয়ন ও মিচেল স্টার্ক। দুইটি করে উইকেট নেন জশ হ্যাজেলউড ও প্যাট কামিনস।

পার্থ টেস্টের সেরা নির্বাচিত হলেন অজি স্পিনার নাথান লিয়ন।  দুই ইনিংস মিলিয়ে ৮ জন ভারতীয় ব্যাটসম্যানকে শিকার করছেন তিনি। বাউন্সের সঙ্গে অসমান পিচের পুরো ফায়দাও লুটেছে নাথান লিয়ন। একই সঙ্গে এই টেস্টে চার পেসার খেলানোর বিরাট ফাটকা নিয়েও প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন তিনি।

কুলদীপ যাদব বা রবীন্দ্র জাদেজার মতো এক জন বিশেষজ্ঞ স্পিনার দলে থাকলে এই টেস্টে অন্য রকম ফল যে দেখা যেত না, তা কে বলতে পারে!

অজিজের জয়ের উল্লাসের মাঝেই সাফ কথাটা বলে দিলেন প্রাক্তন অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ক।

ধারাভাষ্য দিতে গিয়ে তিনি বলেন, অ্যাডিলেডে যোগ্য দল হিসাবেই ভারত জিতেছিল। আর পার্থে নিজের যোগ্যতা দেখিয়ে জিতেছে অস্ট্রেলিয়া!

সে কথা মেনেও নিলেন বিরাট কোহলি। ম্যাচের শেষ তিনি বলেন, এই পিচে প্রথম ইনিংসে তিনশর উপরে রান করাটা নিঃসন্দেহে বড় কথা। অজিরা সেটাই করে দেখিয়েছে। আর দ্বিতীয় ইনিংসে ৩০-৪০ রান কম হলে আমাদের সুবিধা হত।

মতামত দিন