ভালোবাসা দিবসের আগেই আরজু-পরীমনির ‘আমার প্রেম আমার প্রিয়া’

ভালোবাসা দিবসকে সামনে রেখে অভ্যন্তরিন জটিলতা ও সকল সংশয় কাটিয়ে ৮ই ফেব্রুয়ারী মুক্তি পেতে যাচ্ছে সম্পূর্ণ ভালোবাসার ছবি “আমার প্রেম আমার প্রিয়া”। এ ছবির মাধ্যমে জুটি হয়ে আসছেন কায়েস আরজু  ও পরীমনি।

শামীমুল ইসলাম শামীম পরিচালিত ছবিটি নিয়ে বেশ আশাবাদী নায়ক আরজু। এ প্রসঙ্গে কায়েস আরজু বলেন, এই ছবিতে আমাকে একজন নাপিতের ছেলের ভূমিকায় দেখা যাবে। গ্রামের ছেলে, স্বপ্ন অনেক বড় এবং গ্রামের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজে ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী যুবক, যেমন মুশকিল আসান আরো অনেক কিছু। গল্পের বিষয়ে বলবো এটি আমাদের সমাজের সাধারণ প্রেমের গল্প। পরীমনি চেয়ারম্যানের মেয়ে জান্নাত। আমি এই প্রথমবার পরীমনির সাথে জুটি বেঁধে অভিনয় করছি। এটি আমার নবম ছবি। আমি অনেক অনেক আশাবাদী এই ছবিটি নিয়ে। আগে যতগুলো ছবিতে কাজ করেছি এটাও ঠিক আগেরগুলোর মতো সেরা কাজ। তবে দর্শক শ্রোতারা এই ছবিতে একটু ভিন্নতা পাবে। বাংলাদেশ চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় জনন্দিত প্রয়াত নায়ক সালমান শাহ্”র পৃথিবীতে সুখ বলে যদি কিছু থেকে থাকে তার নাম ভালোবাসা তার নাম প্রেম “জীবন সংসার” ছবির একটি গান ও থাকছে এই ছবিতে। আমি বাংলাদেশ চলচ্চিত্রের সিনে প্রেমী দর্শক শ্রোতাদের বলবো আপনার বাংলাদেশের সিনেমার পাশে দাঁড়ান, আমাদের উৎসাহিত করুন। তাহলেই আমাদের চলচ্চিত্র এগিয়ে যাবে।

এ ছবিতে চিত্রগ্রাহক হিসেবে কাজ করেছেন এস এম আজহার। ওয়ান ষ্টার ইন্টারন্যাশনাল মুভিজের ব্যানারে মোজাম্মেল হক খানের প্রযোজনায় “আমার প্রেম আমার প্রিয়া” ছবিতে কায়েস আরজু ,পরীমনি ছাড়াও অভিনয় করেছেন শক্তিমান অভিনেতা মিশা সওদাগর, আলীরাজ, রেবেকা, ডন প্রমুখ। কোরিওগ্রাফি করেছেন মাসুম বাবুল,সাইফ খান,কালু,হাবিব ও পরিচালক নিজে এবং একটি নাচের কোরিওগ্রাফি করেছেন ফাইট ডিরেক্টর মিঠু।

উল্লেখ্য, রোমান্টিক হিরো কায়েস আরজু’র চলচ্চিত্র নির্মাতা হাসিবুল ইসলাম মিজানের “তুমি আছো হৃদয়ে” ছবিটির মাধ্যমে চলচ্চিত্রে আগমন। ছবিটি মুক্তি পাবার পর তাকে আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। এরপর আরজু’র “বাজাও বিয়ের বাজনা”, “প্রেম বিষাদ”, “অবুঝ প্রেম”, “মন তোর জন্য পাগল”, “হেড মাষ্টার”, “ভালোবাসার গল্প” ও তরুণ নির্মাতা সাইফ চন্দনের “ছেলেটি আবোল তাবোল মেয়েটি পাগল পাগল” নামের ছবিগুলো বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল।