ম্যানইউ থেকে বরখাস্ত হোসে মরিনহো

ম্যানইউ থেকে বরখাস্ত হোসে মরিনহো

গত কয়েকদিন ধরেই গুঞ্জন চলছিল, শেষ পর্যন্ত সেটাই সত্যি হলো। ধারাবাহিক খারাপ পারফরম্যান্সের কারণে চাকরি হারালেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ম্যানেজার হোসে মরিনহো। রোববার (১৬ ডিসেম্বর) অ্যাওয়ে ম্যাচে লিভারপুলের কাছে হারের জের। বরখাস্তই হলেন পর্তুগিজ এই কোচ।

মৌসুমের বাকি সময়টা কেয়ারটেকার কোচ দিয়েই চালানো হবে বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। পাশাপাশি নতুন ম্যানেজার খোঁজার কাজও চলবে এই সময়ে।

২০১৬ সালের মে মাসে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের দায়িত্ব নেন হোসে মরিনহো। কিন্তু ২০১৮-১৯ মৌসুমে শুরু থেকেই লিগে ছন্দে নেই ম্যানইউ। ১৭ রাউন্ড শেষে ২৬ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলে ৬ নম্বরে। লিগ টেবিলের শীর্ষ স্থানে থাকা লিভারপুলের সঙ্গে পয়েন্টের পার্থক্য ১৯। প্রথম চারের মধ্যেও নেই ম্যানইউ। পাশাপাশি ক্লাবের এক্সিকিউটিভ  ভাইস প্রেসিডেন্ট এড উডওয়ার্ডের সঙ্গেও মরিনহোর সম্পর্কও একেবারে তলানিতে গিয়ে ঠেকে।

দলের মিড ফিল্ডার পল পোগবার সঙ্গেও বার বার বিতর্কে জড়িয়েছেন মরিনহো। গত দুই মৌসুমে ইউনাইটেড বস হিসেবে ইউরোপা লিগ, লিগ কাপ জিতেছেন মোরিনহো।গত মৌসুমে প্রিমিয়ার লিগে দু’নম্বরে শেষ করেছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। সেই সঙ্গে এফএ কাপের ফাইনালে তুলেছিলেন দলকে। সাফল্য বলতে এটুকুই।

অভিশপ্ত ডিসেম্বর ‘স্পেশাল ওয়ান’র। ২০১৫ সালে এই ডিসেম্বরেই চেলসি থেকে চাকরি খোয়াতে হয়েছিল মরিনহোকে। তিন বছর যেতে না যেতেই আবার সেই ডিসেম্বরেই আর এক ইপিএল জায়ান্ট ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে চাকরি হারালেন হাইপ্রোফাইল কোচ। তবে ইউনাইটেড বস হিসেবে জিনেদিন জিদান দায়িত্ব নিলে খুব একটা অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

সূত্রের খবর, মরিনহোর সহকারী মাইকেল ক্যারিক আপাতত ম্যান ইউ-র ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব নিতে চলেছেন।

মতামত দিন