শাকিব খান ঠেকাতে নতুন ষড়যন্ত্র!

2485
ঢাকায় ফিরছেন শাকিব

পেইজ থ্রি ডেস্ক।।

ঈদে মুক্তি প্রতীক্ষিত বহুল আলোচিত সিনেমা ‘সুপার হিরো’। ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খান অভিনীত ‘সুপার হিরো’ ছবিটি গেল জানুয়ারির শেষদিকে অস্ট্রেলিয়ায় এই ছবির শুটিং শুরু হয়েছিল। ফেব্রুয়ারির ১৮ তারিখ ছবিটির পরিচালক আশিকুর রহমান এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে দাবি করেন অস্ট্রেলিয়ায় ছবিটির শুটিং থামাতে অনেক ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল।

এসব অবশ্য পুরনো খবর। নতুন খবর হল, “সুপার হিরো”কে সেন্সর সার্টিফিকেট না দিতে “নিপা এন্টারপ্রাইজ” নামক একটি প্রতিষ্ঠান তথ্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ৩ মে নিপা এন্টারপ্রাইজের পক্ষে সেলিনা বেগম নামের একজন প্রযোজক “সুপার হিরো”কে সেন্সর সার্টিফিকেট না দিতে তথ্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেন। আবেদনপত্রটি আজ আমলে নেন তথ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব আব্দুল মালেক। আবেদনপত্রে বলা হয়, “‘সুপার হিরো’ নামক ছবিটি সরকারি অনুমতি ব্যতিত সরকারের রাজস্ব, ভ্যাট ফাঁকি দিয়ে অবৈধ পথে দেশ হতে টাকা নিয়ে গত ২২ জানুয়ারি ২০১৮ থেকে ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ পর্যন্ত অস্ট্রলিয়াতে শুটিং করেছে।

আগামী ঈদে ছবিটি মুক্তির প্রস্তুতি নিচ্ছে। এতে করে সাধারণ প্রযোজকরা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। তাই ‘সুপার হিরো’ ছবিটি নিয়ম না মানার কারণে সেন্সর সনদ পাওয়ার যোগ্যতা হারিয়েছে।অতএব, সুপার হিরো’ ছবিটির বিরুদ্ধে সরকারি রাজস্ব ফাঁকি দেয়াসহ অনুমতি গ্রহণ না করে বিদেশে শুটিং করার অভিযোগটি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য বিনীত আবেদন জানাচ্ছি।”

এদিকে ‘নিপা এন্টারপ্রাইজ’ র করা আবেদনপত্রে চরম অসঙ্গতি দেখা গেছে। যে প্যাডে আবেদন করা হয়, তাতে কোনো ঠিকানা দেয়া নেই। এমনকি খোঁজ নিয়েও নিপা এন্টারপ্রাইজের অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি!

চলচ্চিত্রের একাধিক প্রযোজক ও পরিবেশকের জানিয়েছেন, তারা নিপা এন্টারপ্রাইজের কখনও নাম শুনেন নি।

‘সুপার হিরো’ ছবির পরিচালক আশিকুর রহমান জানিয়েছেন, যে অভিযোগ করা হয়েছে, সে ব্যাপারে প্রযোজক ব্যবস্থা নেবেন। ছবির শুটিং শেষ। আমি এখন সম্পাদনা নিয়ে ব্যস্ত।’

ছবিটি প্রযোজনা করছে হার্টবিট প্রডাকশন। এই প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার তাপসী ঠাকুর বলেন, ‘অবশ্যই আমরা প্রয়োজনীয় সব অনুমতি নিয়ে কাজ করেছি। যখন চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডে জমা দেব, তখন অবশ্যই প্রয়োজনীয় সব অনুমতির কাগজসহ জমা দেব।’

তাপসী ঠাকুর যোগ করে আরো বলেন, ‘আমার ছবিটি ঈদে মুক্তি দেওয়ার পরিকল্পনা করছি, তা জানাজানি হওয়ার পর একটি মহল এই মুক্তি ঠেকাতে উঠেপড়ে লেগেছে।’

বিষয়টি নিয়ে শাকিব খানের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি কলকাতা থেকে মুঠাফোনে পেইজ থ্রিকে বলেন,  ‘আমিও বিষয়টি শুনেছি। আসলে আমার ছবি নিয়ে যত ধরনের নোংরা ষড়যন্ত্রে মেতে ওঠে। এর আগে চালবাজ রিলিজের সময় সেন্সর বোর্ডে চিঠি দিয়েছে, মানববন্ধন করেছে। কেন এইসব করছে?  যারা করছে এবং যাদের ইন্ধনে এইসব করানো হচ্ছে। তারা কখনই চলচ্চিত্রের উন্নয়ন চায় না।’

তাহলে কি শাকিব খান ঠেকাতে নতুন ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে? এমনই প্রশ্ন তুলেছেন সিনেপ্রেমীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here