তিন যুগপূর্তিতে মহাকাল নাট্য সম্প্রদায়ের বছরব্যাপী কর্মসূচি

মহাকাল নাট্য সম্প্রদায়ের প্রতিষ্ঠার তিন যুগপূর্তি আগামী ১৪ জুলাই ২০১৯ । এ উপলক্ষে বছরব্যাপী কর্মসূচি গ্রহণ করেছে থিয়েটার অঙ্গনের নিবেদিত এ নাট্যদল। নানাবিধ এ নাট্য কার্যক্রমের অংশ হিসেবে রয়েছে- নতুন মঞ্চনাটক মহাপ্রয়াণের শোক আখ্যান ‘শ্রাবণ ট্র্যাজেডি’, নতুন নাট্যবন্ধুদের সমন্বয়ে মাসব্যাপী নাট্য কর্মশালা এবং নতুন শিল্পীদের দিয়ে দুটি কর্মশালা প্রযোজনা, ‘নীলাখ্যান’ নাটক নিয়ে ভারতের ত্রিপুরা ও পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সফর।

একইভাবে রয়েছে পাঁচ দিনব্যাপী ‘ঢাকা-দিল্লী নাট্যোৎসব’-এর আয়োজন, দলীয় নাট্যকার কানাই চক্রবর্তী রচিত ‘আনন্দের মুক্তি চাই এবং অন্যান্য নাটক’ গ্রন্থের প্রকাশনা উৎসব, বাস্তবায়নের পথে মানবিক নাটক ‘শিখণ্ডী কথা’র ১৭৫তম প্রদর্শনী, কাজী নজরুল ইসলাম-এর ‘সাপুড়ে’র আশ্রয়ে মানব প্রেমের অমর উপাখ্যান ‘নীলাখ্যান’-এর ৫০তম মঞ্চায়ন। জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহে নাটক নিয়ে দিল্লী সফর এবং বছরব্যাপী অনুষ্ঠানমালার সমাপ্তি ঘটবে আগামী জুলাই মাসে সপ্তাহব্যাপী ‘বাংলা নাট্যোৎসব’ আয়োজনের মধ্য দিয়ে।

তারই আলোকে আগামী ২৩ মে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে জাতীয় নাট্যশালার পরিক্ষণ থিয়েটার হলে মঞ্চস্থ হবে মহাকাল নাট্য সম্প্রদায়ের নাটক ‘নীলাখ্যান’-এর ৫০তম মঞ্চায়ন। নাটকটি রচনা করেছেন আনন জামান এবং নির্দেশনা দিয়েছেন ইউসুফ হাসান অর্ক। ২০১৫ সালের ১৪ আগস্ট একই মঞ্চে নাটকটির প্রথম মঞ্চায়ন অনুষ্ঠিত হয়।

২৩ মে বিকাল ৪টায় ‘নীলাখ্যান’ নাটকের ১৭৫তম মঞ্চায়ন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে. এম. খালিদ এম.পি। বিশেষ অতিথি থাকবেন বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশানের সেক্রেটারি জেনারেল নাট্যজন কামাল বায়েজীদ এবং সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন কবি নজরুল ইন্সটিটিউট-এর নির্বাহী পরিচালক অতিরিক্ত সচিব মানিক মোহাম্মদ রাজ্জাক।

অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখবেন সংগঠনের সিনিয়র সদস্য মো. আবদুল জলিল। অনুষ্ঠান সঞ্চালন করবেন মহাকাল নাট্য সম্প্রদায়ের সম্মানীত সদস্য এম. এ. আজাদ এবং সভাপতিত্ব করবেন মহাকাল নাট্য সম্প্রদায়ের দল প্রধান মীর জাহিদ হাসান।

অনুষ্ঠানমালায় আরো থাকবে ‘নীলাখ্যান’ নাটকের নাট্যকার ও নির্দেশককে সম্মাননা জ্ঞাপন এবং ৫০টি প্রদর্শনীতেই অংশগ্রহণকারী শিল্পী মো. শাহনেওয়াজ ও মীর জাহিদ হাসানকে সম্মাননা স্মারক প্রদানসহ অংশগ্রহণকারী সকল শিল্পীদেরকে ৫০তম মঞ্চায়ন স্মারক প্রদান। আলোচনা অনুষ্ঠানের প্রথমেই থাকছে মহাকাল নাট্য সম্প্রদায়ের পরিবেশনায় গীতি আলেখ্য মীর জাহিদ হাসানের গ্রন্থনা ও পরিকল্পনায় এবং আমিনুল আশরাফের কোরিওগ্রাফি ও নির্দেশনায় ‘যখন আমার পিতার নাম শেখ মুজিবুর রহমান’।

একই আবহে ২৪ মে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় প্রদর্শিত হবে বাংলাদেশে প্রথম হিজড়া সমাজের মানুষের সুখ-দুঃখ কথামালায় গাঁথা গবেষণালব্ধ নাটক ‘শিখণ্ডী কথা’। এটি ব্যতিক্রমী এ নাটকের ১৭৫তম মঞ্চায়ন। আনন জামান রচিত এ নাটকটি নির্দেশনা দিয়েছেন ড. রশীদ হারুন।

এ নাটকের প্রথম মঞ্চায়ন হয় ২০০২ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ মহিলা সমিতি মঞ্চে এবং শততম মঞ্চায়ন হয় ২০১০ সালের ৩ মার্চ জাতীয় নাট্যশালার মূল হলে। একইভাবে নাটকটির ১৫০তম মঞ্চায়ন অনুষ্ঠিত হয় ২০১৪ সালের ১৫ নভেম্বর বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় সঙ্গীত ও নৃত্যকলা মিলনায়তনে।

২৪ মে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ‘শিখণ্ডী কথা’ নাটকের ১৭৫তম মঞ্চায়ন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে থাকবেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সংস্কৃতিজন গোলাম কুদ্দুছ এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশানের সভাপতিমণ্ডলির সদস্য নাট্যজন লাকী ইনাম। অনুষ্ঠান সঞ্চালন করবেন মহাকাল নাট্য সম্প্রদায়ের সাধারণ সম্পাদক মো. শাহনেওয়াজ এবং সভাপতিত্ব করবেন দলের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য কবির আহামেদ।

অনুষ্ঠানে নাটকটির নাট্যকার ও নির্দেশককে প্রদান করা হবে বিশেষ সম্মাননা প্রদানের পাশাপাশি ১-১৭৫টি মঞ্চায়নে সর্বোচ্চ অংশ নেওয়া অভিনয়শিল্পী মীর জাহিদ হাসান, মো. শাহনেওয়াজ, সৈয়দ লুৎফর রহমান, এম. এ. আজাদ, ইকবাল চৌধুরী, পলি বিশ্বাস, সৈয়দ ফেরদৌস ইকরাম ও কামরুজ্জামান সবুজকে প্রদান করা হবে ১৭৫তম মঞ্চায়ন স্মারক।

প্রসঙ্গত, মহাকাল নাট্য সম্প্রদায় বাঙালির হাজার বছরের সংস্কৃতির প্রতি অবিচল আনুগত্যে স্থির থেকে ১৯৮৩ সাল থেকে নিয়মিত নাট্যচর্চারত সংগঠন হিসেবে সংস্কৃতি অঙ্গণে কর্মকাণ্ড চালিয় আসছে। প্রতিষ্ঠার পর থেকে অবিরাম নাট্যচর্চায় মহাকাল নাট্য সম্প্রদায় ৪০টি নাট্য প্রযোজনা মঞ্চে এনেছে ও ইতোমধ্যে প্রযোজনাগুলোর ১০১৯ টি প্রদর্শনী সম্পন্ন করেছে এবং ২টি নাট্য প্রযোজনার শতাধিক মঞ্চায়ন এবং ১টি প্রযোজনার দেড়শততম মঞ্চায়ন সম্পন্ন করেছে। বর্তমানে দলটি ৪টি প্রযোজনা নিয়মিতভাবে মঞ্চায়ন করে যাচ্ছে।