হয়ে গেল কান চলচ্চিত্র উৎসবের উদ্বোধন

বিশ্ব চলচ্চিত্রের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ উৎসবের উদ্বোধন হয়ে গেল দক্ষিণ ফ্রান্সের সাগরপাড়ের কান শহরে। বলছি ‘আন্তর্জাতিক কান চলচ্চিত্র উৎসব’-এর কথা। ১৪ মে সন্ধ্যায় পাল দে ফেস্তিভাল ভবনের গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে অস্কারজয়ী অভিনেতা হাভিয়ার বারদেমের সঙ্গে ফরাসি অভিনেত্রী ও গায়িকা চার্লোট গেইন্সবর্গে জমকালো আয়োজনের উদ্বোধন ঘোষণা করেন। টিভি চ্যানেলের পাশাপাশি প্রায় ৬০০ প্রেক্ষাগৃহে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি প্রদর্শিত হয়।

হাভিয়ার বারদেম ও চার্লোট গেইন্সবর্গ

মাস্টার অব সিরিমনিস এদুয়া বেয়ার আমন্ত্রণে মঞ্চে আসেন প্রতিযোগিতা শাখার বিচারক ফরাসি গ্রাফিক ঔপন্যাসিক-নির্মাতা এনকি বিলাল, মার্কিন নারী নির্মাতা কেলি রাইকার্ড, গ্রিসের পরিচালক ইওর্গস লানতিমোস, ইতালিয়ান নারী নির্মাতা অ্যালিস রোরওয়াচার, ফরাসি নির্মাতা রবিন ক্যাম্পিলো, পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুরকিনা ফাসোর অভিনেত্রী-পরিচালক মায়মুনা এনদাই, পোল্যান্ডের অস্কার মনোনীত পরিচালক পাওয়েল পাওলিকস্কি ও মার্কিন অভিনেত্রী এল ফ্যানিং।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের শুরুতে পর্দায় ভেসে ওঠে ‘ভারদা বাই আনিয়েস’ ছবির দৃশ্য। এতে দেখা যায়, সাগরপাড়ে পরিচালকের চেয়ারে বসে একা একা কথা বলছেন প্রয়াত ফরাসি নারী নির্মাতা আনিয়েস ভারদা। যিনি মার্চে ৯০ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন। এই দৃশ্য শেষ হতেই আলোকিত মঞ্চে দেখা যায়, সেই চেয়ারটি পড়ে আছে। তাতে লেখা ‘আনিয়েস ভি.’। তার তারুণ্যের সময়কার একটি স্থিরচিত্র নিয়ে সাজানো হয়েছে এবারের উৎসবের অফিসিয়াল পোস্টার। তাকে সম্মান জানিয়ে মঞ্চে শূন্য চেয়ার রাখা হয়। এ ছাড়াও তার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ‘আই অ্যাম এন অ্যাম্পটি হাউজ উইদাউট ইউ’ গানটি পরিবেশন করেন বেলজিয়ান গায়িকা অ্যাঞ্জেলা।

প্রতিযোগিতার জুরিবোর্ডের সভাপতি আলেহান্দ্রো গঞ্জালেস ইনারিতুর বিভিন্ন ছবির অংশবিশেষ প্রদর্শিত হয় তিনি মঞ্চে আসার আগমুহূর্তে। তিনি বলেন, স্প্যানিশ ভাষা যারা বোঝে না তাদের কাছেও সিনেমার সুবাদে তা মধুর হয়ে ওঠে। সিনেমার আবেগী দিক এটাই। অফিসিয়াল সিলেকশনের ছবিগুলোর বিভিন্ন অংশও প্রদর্শিত হয় অনুষ্ঠানে। প্রথমদিন লালগালিচায় আলো ছড়িয়েছেন জুলিয়ান মুর, ইভা লঙ্গোরিয়া, গঙ লি প্রমুখ। উদ্বোধন শেষে প্রদর্শিত হয় প্রতিযোগিতা বিভাগে নির্বাচিত জিম জারমাশ পরিচালিত ‘দ্য ডেড ডোন্ট ডাই’ সিনেমাটি।

রেড কার্পেটে ইভা লঙ্গোরিয়া

এবারের আয়োজনে প্রায় ১৮০০টি চলচ্চিত্র অফিসিয়াল সিলেকশনের জন্য জমা পড়ে। বিগত পাঁচ বছর ধরে এমনই হয়ে আসছে। প্রায় চার হাজার স্বল্পদৈর্ঘ্যর মধ্য হতে বেছে নেওয়া হয়েছে ১১টি স্বল্পদৈর্ঘ্য। ৩৯টি দেশের চলচ্চিত্র এবারের আসরে নানা শাখায় সংযুক্ত আছে।

এবারের আয়োজনে নারীদের প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। আয়োজক কমিটির প্রায় ৬১ শতাংশ কর্মী নারী। আটজনের সিলেকশন কমিটির অর্ধেকই ছিলেন নারী। চার শাখার জুরিবোর্ডের তিন শাখাতেই নারীদের দেওয়া হয়েছে পুরুষদের সমমর্যাদা। সিলেকশন প্রসেসেও নারী নির্মাতাদের সিনেমাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। প্রদর্শিত সিনেমাগুলোতেও নারী নির্মাতাদের সংখ্যা গত বছরগুলোর তুলনায় বেড়েছে।

উল্লেখ্য, আগামী ২৫ মে উৎসবের পর্দা নামবে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মতো সমাপনীতেও সঞ্চালক হিসেবে থাকবেন ফরাসি অভিনেতা ও নির্মাতা এদুয়া বেয়া। জুরিবোর্ডের সভাপতি আলেহান্দ্রো গঞ্জালেস ইনারিতু স্বর্ণপাম জয়ী ছবির নাম ঘোষণা করবেন শেষ দিন।